পশ্চিমবঙ্গে পঞ্চায়েতীরাজ (Panchayatiraj In West Bengal)

পশ্চিমবঙ্গে পঞ্চায়েতীরাজ (Panchayatiraj In West Bengal)

1. ‘পঞ্চায়েতীরাজ’ বলতে কি বােঝায় ?
উত্তর : গণতান্ত্রিক বিকেন্দ্রীকরণ নীতিকে সার্থকভাবে রূপায়ণের জন্য ভারতবর্ষে পঞ্চায়েতীরাজ ব্যবস্থাকে সাংবিধানিক স্বীকৃতি জানানাে হয়েছে। গ্রামীণ স্বায়ত্তশাসন প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যকে সামনে রেখেই ভারতবর্ষে পঞ্চায়েতীরাজ ব্যবস্থাটি গড়ে তােলা হয়েছে। উল্লেখ্য যে, পঞ্চায়েতীরাজ ও গণতান্ত্রিক বিকেন্দ্রীকরণ সমাজ উন্নয়নমূলক পরিকল্পনার সাথে গভীরভাবে সম্পর্কযুক্ত। গ্রামের মানুষদের স্বার্থকে পরিপূর্ণ করতেই পঞ্চায়েতীরাজ ব্যবস্থা গড়ে তােলা হয়েছে।

2. ‘পঞ্চায়েতীরাজ’ ব্যবস্থার গঠনটি (Structure) আলােচনা কর।
উত্তর : পশ্চিমবঙ্গের পঞ্চায়েত ব্যবস্থা ত্রিস্তরবিশিষ্ট। গ্রামীণস্তরে গ্রাম পঞ্চায়েত, ব্লকস্তরে পঞ্চায়েত সমিতি এবং জেলা স্তরে জেলা পরিষদ। গ্রামােন্নয়ন পরিকল্পনাকে কার্যকর করার ব্যাপারে মূল দায়িত্ব এই পঞ্চায়েত প্রতিষ্ঠানগুলির উপর ন্যস্ত করা হয়েছে।

3. জেলা পরিষদ কিভাবে গঠিত (Formed) হয় ?
উত্তর : প্রত্যেক জেলার নাম অনুসারে রাজ্য সরকার একটি জেলাপরিষদ গঠন করে। (a) পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতিগণ। পদাধিকারবলে জেলা পরিষদের সদস্য, (b) মন্ত্রীবাদে জেলা থেকে নির্বাচিত লােকসভা ও বিধানসভার সদস্যগণ এবং জেলায় বসবাসকারী রাজ্যসভা সদস্যগণও পদাধিকার বলে জেলা পরিষদের সদস্য। (c) এছাড়া প্রতি ব্লক থেকে দুজন করে সদস্য ৫ বছরের জন্য সার্বিক প্রাপ্তবয়স্কের ভােটাধিকারের ভিত্তিতে নির্বাচিত হন। (d) নতুন পঞ্চায়েত আইনে জেলা পরিষদের মােট আসনের এক-তৃতীয়াংশ মহিলাদের জন্য এবং নির্দিষ্ট সংখ্যক আসন তফশিলী জাতি ও উপজাতিদের জন্য সংরক্ষণের কথা বলা হয়েছে।

4. জেলা পরিষদের আয়ের উৎসগুলি (Source of Income) কি কি?
উত্তর। জেলা পরিষদকে অর্থের জন্য বিশেষভাবে রাজ্য ও কেন্দ্রীয় সরকারের অনুদান ও ঋণের উপর নির্ভর করতে হয়।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

6 + ten =