ভারতীয় বিচারব্যবস্থা (Indian Judicial System)

ভারতীয় বিচারব্যবস্থা (Indian Judicial System)

1. ভারতের বিচারব্যবস্থার (Judicial System) উপর সংক্ষেপে একটি টীকা লেখ।
উত্তর: ভারত একটি যুক্তরাষ্ট্র। ভারতে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ন্যায় দ্বৈত বিচারব্যবস্থা প্রবর্তিত হয়নি। ভারতে সর্বোচ্চ আদালত হতে শুরু করে সর্বনিম্ন আদালত পর্যন্ত সকল আদালত একই অভিন্ন বিচারব্যবস্থার অঙ্গীভূত। এক কথায় বলা যায়, ভারতে বিচারব্যবস্থা এক এবং অখণ্ড। এখানে বিচারব্যবস্থার শীর্ষে আছে সুপ্রীমকোর্ট।

2. ভারতের বিচারব্যবস্থার সাথে মার্কিন বিচারব্যবস্থার (Judicial system) পার্থক্য কী?
উত্তর: ভারতের বিচারব্যবস্থার সাথে মার্কিন বিচারব্যবস্থার পার্থক্য তা পরিলক্ষিত হয়। প্রথমতঃ, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে কেন্দ্রের মতাে অঙ্গরাজ্যগুলিতেও স্বাধীন ও স্বতন্ত্র সুপ্রীমকোর্ট আছে। কিন্তু ভারতীয়যুক্তরাষ্ট্রীয় শাসনব্যবস্থায় দ্বৈত বিচারব্যবস্থার নীতি স্বীকৃত হয়নি। দ্বিতীয়তঃ, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সুপ্রীমকোর্টের মতাে ভারতের সুপ্রীমকোর্ট শক্তিশালী নয়।

3. ভারতের বিচারব্যবস্থা গঠনের ক্ষেত্রে কয়েকটি মৌলিক উদ্দেশ্য (Fundamental objectives) কাজ করে। এগুলি কি কি?
উত্তর: ভারতের বিচারব্যবস্থা গঠনের ক্ষেত্রে কয়েকটি মৌলিক উদ্দেশ্য কাজ করে। এই উদ্দেশ্যগুলি হল : (a) সামাজিক বিপ্লবের সহায়ক সংস্থান হিসাবে বিচারবিভাগকে সংগঠিত করা; (b) বিচারবিভাগের স্বাধীনতা সংরক্ষণ; (c) দেশের ঐক্য ও সংহতির স্বার্থে এক অখণ্ড বিচারব্যবস্থার সংগঠন।

4. ভারতের বিচারব্যবস্থার বৈশিষ্ট্যগুলি (Features) উল্লেখ কর।
উত্তর: ভারতের বিচারব্যবস্থা হল এক ও অখণ্ড। এই অখণ্ড বিচারব্যবস্থার শীর্ষে আছে সুপ্রীমকোর্ট। এছাড়া ভারতে পূর্ণ ক্ষমতাস্বতন্ত্রীকরণ নীতিটি গৃহীত হয়নি। কিন্তু সংবিধানে বিচারবিভাগকে শাসনবিভাগ থেকে পৃথক রাখা হয়েছে। সেই সঙ্গে সমগ্র দেশে একই দেওয়ানী ও ফৌজদারী বিধি অনুযায়ী বিচারকার্য পরিচালিত হয়। এইগুলিই হল ভারতের বিচারব্যবস্থার মৌলিক বৈশিষ্ট্য।

5. ভারতের সুপ্রীমকোর্ট কিভাবে গঠিত (Formed) হয় ?
উত্তর: ভারতীয় সংবিধান অনুসারে সুপ্রীমকোর্টের বিচারপতির সংখ্যা নির্ধারণের ক্ষমতা কেন্দ্রীয় আইনসভার উপর ন্যস্ত আছে। পার্লামেন্ট আইন করে বিচারপতির সংখ্যা বাড়াতে পারে। ১৯৮৬খ্রিস্টাব্দের এপ্রিল মাসে সুপ্রীম কোর্টের বিচারপতির সংখ্যা বাড়িয়ে করা হয়েছে ২৬। এঁদের মধ্যে একজন হলেন প্রধান বিচারপতি এবং ২৫জন হলেন সহকারী বিচারপতি। উল্লেখ্য সংবিধান অনুসারে সুপ্রীমকোর্টে অস্থায়ী বিচারপতি নিয়ােগ করা যায়।

6. ভারতীয় সুপ্রীমকোর্টের প্রধান প্রধান কাজগুলি (Main functions) কি কি?
উত্তর: ভারতের সুপ্রীমকোর্ট একাধারে যুক্তরাষ্ট্রীয় আদালত হিসাবে, সর্বোচ্চ আপীল আদালত হিসাবে, সংবিধানের অভিভাবক ও চূড়ান্ত ব্যাখ্যাকারক হিসাবে এবং মৌলিক অধিকারের সংরক্ষক হিসাবে তাৎপর্যপূর্ণ কার্যাদি পালন করে।

7. সুপ্রীমকোর্টের বিচারপতি হবার জন্য কি কি যােগ্যতার (Qualifications) প্রয়ােজন হয় ?
উত্তর: ভারতের সুপ্রীমকোর্টের বিচারপতি হবার জন্য নিম্নলিখিত যােগ্যতা থাকা চাই ? (a) তাকে অবশ্যই ভারতের নাগরিক হতে হবে, (b) তাকে কোনাে হাইকোর্টের বা পর পর দুটি বা তার বেশি হাইকোর্টের বিচারপতি হিসাবে অন্তত ৫ বছর কাজ করতে হবে, (c) দশ বছর কোনাে হাইকোর্টের বা দুটি বা তার বেশি হাইকোর্টের অ্যাডভােকেট হিসাবে আইন ব্যবসা করতে হবে, (d) রাষ্ট্রপতির মতানুসারে একজন বিচক্ষণ আইনজ্ঞ হতে হবে [১২৪(৩) ধারা]।

৪. ভারতীয় সুপ্রীমকোর্টের বিচারপতিগণ কিভাবে নিযুক্ত (Appointed) হন?
উত্তর: ভারতের রাষ্ট্রপতি সুপ্রীমকোর্টের বিচারপতিগণকে নিয়ােগ করেন। এ ব্যাপারে রাষ্ট্রপতি সুপ্রীমকোর্টের ও হাইকোর্টের যে সকল বিচারপতির সাথে পরামর্শ করা প্রয়োজন মনে করেন তাদের সাথে পরামর্শ করে থাকেন। তবে সুপ্রীমকোর্টের প্রধান বিচারপতি রাষ্ট্রপতির সম্মতি সাপেক্ষে কোনাে অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতিকে সাময়িককালের জন্য বিচারক হিসাবে মনােনীত করতে পারেন।

9. সংবিধানের উপর সুপ্রীমকোর্টের ভূমিকা (Role) আলোচনা কর।
উত্তর: ভারতের সুপ্রীমকোর্ট সংবিধানের অভিভাবক ও চরম ব্যাখ্যাকর্তা হিসাবে পরিচিত। সংবিধানের কোন ধারার ব্যাখ্যা সম্পর্কে কোর্টের বক্তব্যই চূড়ান্ত। দেশের আইন ও শাসন বিভাগ সংবিধান নির্দিষ্ট সীমা অতিক্রম করছে কিনা সে বিষয়ে সুপ্রীমকোর্ট নজর রাখে। সংবিধানের রক্ষক হিসাবে সুপ্রীমকোর্ট সংবিধানবিরােধী যে কোনাে কাজ বাতিল করে দিতে পারে।

10. ভারতীয় সুপ্রীমকোর্ট কিভাবে নাগরিকদের মৌলিক অধিকারগুলি (Fundamental Rights) রক্ষা (Protect) করে?
উত্তর: ভারতের গণতান্ত্রিক ব্যবস্থায় নাগরিক অধিকার সংরক্ষণের দায়িত্ব সুপ্রীমকোর্টের উপর ন্যস্ত আছে। ভারতে সুপ্রীমকোর্টই হল মৌলিক অধিকার তথা গণতন্ত্রের রক্ষক। ভারতে মৌলিক অধিকারের বিরােধী কোনাে আইন অথবা কোনাে সরকারী নিদের্শ বৈধভাবে কার্যকর হতে পারে না। কারণ এরকম যে কোনাে আইন বা আদেশের বিরুদ্ধে আবেদন করলে সুপ্রীমকোর্ট তা অসাংবিধানিক দায়ে বাতিল করে দিতে পারে।

11.যুক্তরাষ্ট্রীয় আদালত (Federal Court) হিসাবে সুপ্রীমকোর্টের ভূমিকা ব্যাখ্যা কর।
উত্তর: ভারতের শাসনব্যবস্থা যুক্তরাষ্ট্রীয়। কেন্দ্র ও রাজ্যসরকারগুলির মধ্যে বা অঙ্গরাজ্যগুলির নিজেদের মধ্যে সংবিধান অনুসারে বণ্টিত ক্ষমতা নিয়ে বিরােধ বাধলে সুপ্রীমকোর্ট তার মীমাংসা করে। সংবিধানের১৩১নং ধারা অনুসারে কেন্দ্র রাজ্য এবং আন্তঃরাজ্য বিরােধ মীমাংসার ক্ষেত্রে সুপ্রীমকোর্ট মূল এলাকাগত ক্ষমতার অধিকারী। তাই ভারতের সুপ্রীমকোর্ট হল যুক্তরাষ্ট্রীয় আদালত।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

1 × two =