অযােধ্যা – আঞ্চলিক শক্তির উত্থান (Ayodhya – Rise of regional power)

অযােধ্যা – আঞ্চলিক শক্তির উত্থান – আধুনিক যুগের ইতিহাস (Ayodhya – Rise of regional power)

অযােধ্যা (১৭২২-১৮৫৬)সাদাত খান (১৭২২-১৭৩৯) : মহম্মদ শাহ তাঁকে অযােধ্যার শাসক নিযুক্ত করেন। ১৭২২ খ্রিস্টাব্দে তিনি স্বাধীনতা ঘােষণা করেন এবং সাদাতখান বুরহান-উল-মুলক’ উপাধি নেন। তিনি বাংলা-ই-ফৈজাবাদ নামে একটি আবাসিক প্রাসাদ নির্মাণ করেন। নাদির শাহ তাকেভকিল-ই-মুতলাখ পদে নিয়ােগ করেন। ১৭৩৯ খ্রিস্টাব্দে তিনি বিষ খেয়ে আত্মহত্যা করেন।সফদরজঙ (১৭৩৯-১৭৫৪) : সফদরজঙ ছিলেন মুঘলদের উজীর। তার আসল নাম ছিল মনসুর খাঁ। ১৭৪৮ খ্রিস্টাব্দে তিনি আহম্মদ শাহের উজীর নিযুক্ত হন ও নায়েব উজীর নামে পরিচিতি পান। মহম্মদ শাহ তাকে অযােধ্যার সুবাদার নিযুক্ত করেন ও সফদরজঙ’ উপাধি দেন। তিনি রােহিলা, জাঠ ও মারাঠাদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করেন।সুজাউদদৌল্লা (১৭৫৪-১৭৭৫) : তিনি বক্সারের যুদ্ধে বাংলার নবাব মিরকাশিমের পক্ষ নেন এবং কারা ও এলাহাবাদ হারান। ১৭৭৩ খ্রিস্টাব্দে তিনি ওয়ারেন হেস্টিংসের সঙ্গে বেনারসের সন্ধি করেন এবং কারা ও এলাহাবাদ ইংরেজদের কাছ থেকে কিনে নেন। ১৭৭৪ খ্রিস্টাব্দে তিনি রােহিলাদের হারিয়ে রােহিলখন্ড অযােধ্যার সঙ্গে যুক্ত করেন। তিনি দ্বিতীয় শাহ আলমের উজীর নিযুক্ত হন এবং মারাঠাদের বিপক্ষে আহম্মদ শাহ আবদালীর পক্ষে যােগ দেন।আসাফ-উদ-দৌলা (১৭৭৫-১৭৯৭) : ১৭৭৫ খ্রিস্টাব্দে ব্রিটিশ ও আসা-উদ্-দৌলার মধ্যে ফৈজাবদের চুক্তি হয়। তিনি রাজধানী ফৈজাবাদ থেকে লক্ষ্ণৌ নিয়ে যান ১৭৭৫ খ্রিস্টাব্দে। ১৭৯৭ খ্রিস্টাব্দে আসাফের মৃত্যুর পর ওয়াজির আলিকে অযােধ্যার সিংহাসনে বসান ইংরেজরা।ওয়াজির আলি শাহ (১৭৯৭-১৭৯৮) : তিনি ইংরেজদের ৭৬ লক্ষ টাকা দেন। তাকে সরিয়ে সিংহাসনে বসেন সাদাত খান (১৭৯৮)। ওয়াজির জামান শাহের সঙ্গে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হন ইংরেজদের বিরুদ্ধে। ওয়াজির আলিকে ইংরেজরা বন্দী করে ফোর্ট উইলিয়াম দূর্গে পাঠিয়ে দেন। তিনি ১৮১৭ খ্রিস্টাব্দে ফোর্ট উইলিয়ামে মারা যান।সাদাত আলি : ১৮০১ খ্রিস্টাব্দে তিনি লর্ড ওয়েলেসলির সঙ্গে অধীনতামুলক মিত্ৰতা চুক্তিতে স্বাক্ষর করেন ও তার রাজ্যের অধিকাংশ কেড়ে নেওয়া হয় ব্রিটিশ সৈন্যের ভরণ পােষণের জন্য। ১৮৩৭ খ্রিস্টাব্দে নাসিরুদ্দীন সিংহাসনে বসেন সাদাত আলির মৃত্যুর পর। এরপর গাজিউদ্দীন ও নাসিরুদ্দীন-এর বেগমের মধ্যে উত্তরাধিকার প্রশ্নে গৃহযুদ্ধ শুরু হয়। লর্ড হার্ডিঞ্জ গাজিউদ্দিনকে অযােধ্যার সিংহাসনে বসান।ওয়াজিদ আলি শাহ : তিনি ছিলেন অযােধ্যার শেষ নবাব। ১৮৫৬ খ্রিস্টাব্দে কুশাসনের অজুহাতে লর্ড ডালহৌসি অযােধ্যা রাজ্যটি অধিগ্রহণ করেন এবং ওয়াজিদ আলি শাহকে ভাতা দিয়ে কলকাতায় পাঠিয়ে দেন। তিনি কোলকাতায় মেটিয়াবুরুজে এসে নাটক লেখা এবং একাধিক বিবাহের কাজে মন দেন।

জাঠ শক্তির উত্থান


শিখ শক্তির উত্থান ও পতন

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

7 − five =